Tuesday, November 12, 2019

'রাঙ্গা'-কে রাঙ্গিয়ে।

রে রাঙ্গা, তোর বাপই তো ছিল
      ভায়াগ্রাখোর, বিশ্ববেহায়া, বিশ্বচোর।

[১], [২], [৩], [৪], [৫], [৬], [৭], [৮], [৯], [১০]

এই ভিডিও ক্লিপে রাঙ্গা আরেকটা ভয়ংকর কথা বলেছে গালিসহ ৯ মিনিটে ৫৫ সেকেন্ডে! এটা অনেকে হয়তো খেয়াল করেননি। এই প্রজন্ম তো এই মানুষটাকে চেনেই না। মায় মিডিয়াও! এই দেশের অসাধারণ এক সন্তান বিচারপতি শাহাবুদ্দিন আহমেদ। [১১]

সহায়ক সূত্র:
১. শিশু খুনি এরশাদ: https://www.ali-mahmed.com/2010/06/blog-post_16.html
২.  মদ্যপ এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2016/05/blog-post_27.html
৩. অন্ধকার থেকে এরশাদ: https://www.ali-mahmed.com/2011/06/blog-post_4419.html
৪. বাপ এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2014/02/blog-post_6.html
৫. শাসক এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2010/05/blog-post_3701.html
৬. 'কোবি' এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2009/03/blog-post_09.html
৭. জিয়া-মন্জুর-এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2013/05/blog-post_23.html
৮. প্রেস এডভাইজ, এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2011/07/blog-post_17.html
৯. ফ্রিডম অভ স্পিচ, এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2019/07/blog-post_15.html
১০. পাকিস্তানে এরশাদhttps://www.ali-mahmed.com/2010/03/blog-post_03.html
১১. সাহাবুদ্দিন আহমদhttps://www.ali-mahmed.com/2009/02/blog-post_9839.html

... 

রাঙ্গাকে নিয়ে লিখেছেন: Anwar Mukul
"খুনি এরশাদের নির্দেশে যখন নূর হোসেনকে হত্যা করা হয় মসিউর রহমান রাঙ্গা তখন রংপুরের সবচেয়ে বড় বাংলা মদ ও তাড়ির ভাটিতে ফুট ফরমায়েশ খেটে জীবিকা নির্বাহ করতো। অবশ্য পরে ওই তাড়ীর ভাঁটির মালিক লালা বাবু রাঙ্গাকে তার দোকানের ম্যানেজার বানিয়েছিলেন।
লালা বাবুর ছেলে কনকের সাথে দোস্তি পাতিয়ে লালা বাবুর বাড়ীতে উঠা -বসা করার সুযোগ নিয়ে এই বেঈমান রাঙ্গা হিন্দু ধর্মাবলম্বী লালা বাবুর মেয়েকে জোর করে ভাগিয়ে বিয়ে করে। বিয়ের পর কিছুদিন এদিক-সেদিক ঘোরাঘুরি করে রংপুর বাস স্ট্যান্ডে চাঁদা কালেক্টর/ চেইন মাস্টারের কাজ নিয়ে প্রতিদিন নানা জনের নির্দেশে টাকার বিনিময়ে মারামারি-মাস্তানি করে বেরিয়েছে।
বাস স্ট্যান্ডের ছিঁচকে সন্ত্রাসী রাঙা একপর্যায়ে ভুলিয়ে-ভালিয়ে মেয়র শরফুদ্দিন আহমেদ ঝন্টুর হাতে-পায়ে ধরে ব্যাংক লোনের ব্যবস্থা এবং তাঁর কাছ থেকে কিছু টাকা নিয়ে নিজেই একটা বাস কিনে মালিক বনে যায়। আর এখান থেকেই শুরু হয় রাঙ্গার উত্থান। রংপুরের ঢাকা বাস স্ট্যান্ডে শ্রমিক নেতা আকরামকে হত্যার ভেতর দিয়ে দ্রুতই লাইম লাইটে চলে আসে রাঙ্গা। আর সেই সাথে এই বেঈমান বিশ্বাসঘাতক যে ঝণ্টুর টাকায় বাস কিনে মালিক বনে গেল সেই শরফূদ্দিন আহমেদ ঝন্টুকেই মালিক সমিতি থেকে উৎখাত করে পুরো রংপুর বাস স্ট্যান্ডের দখল নিজের হাতে নিয়ে নেয়।
এরশাদ আমলে রাঙ্গা বিএনপির নেতাদের পিছনে-পিছনে ঘুরে বেড়ালেও এরশাদের পতনের পরে রংপুরে এরশাদের আঞ্চলিক প্রভাব দেখে এরশাদকে মামা বানিয়ে জাতীয় পার্টি করা শুরু করে দেয়। বন্ধু-বান্ধব জিজ্ঞাসা করলে রাঙ্গা তখন প্রকাশ্যেই এরশাদ-জিনাত মোশারফের নানা মুখরোচক গল্প বলে হাসাহাসি করতো। এহেন রাঙ্গার নিজের নানা অপকর্ম গুণ্ডামি চুরি-চামারি নারী-লিপ্সার নানান কাহিনী রংপুরে সর্বজনবিদিত। মন্ত্রী হয়ে কয়েক শত মানুষের কাছ থেকে চাকুরি দেবার নাম করে টাকা নিয়ে সব টাকাই গায়েব করে দিয়েছে।
রাঙ্গাদের বর্তমান বাড়ি দক্ষিন গুপ্তপাড়ায় হলেও আসল বাড়ি লালমনিরহাট-এর কালিগঞ্জের চামটা ইউনিয়নে। রাঙ্গার আপন বাপ ও চাচারা মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে রাজাকার ছিল বলে স্বাধীনতার পর এদের পরিবার জনগণের গণপিটুনির ভয়ে গ্রামে যেতে পারতো না। সেই রাঙ্গা আজ ফ্যাসিবাদের পদলেহন করে মামা এরশাদের হাত ধরে মন্ত্রী পর্যন্ত হয়ে ধরাকে সরা জ্ঞ্যান করতে দ্বিধা করছে না।
নিজদলের কর্মী নুর হোসেনের রক্তের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে আজ যে ফ্যাসিবাদ বিনা ভোটে মধ্যরাতের নৈশ অভিযানে নিজেদেরকে নির্বাচিত দেখাচ্ছে সেই প্রহসনের ভোটে রাঙ্গার নেতা খুনি এরশাদ ছিলেন অন্যতম সহযোগী। ফলে ফ্যাসিবাদের কণ্ঠলগ্ন হয়ে নুর হোসেনের নামে আজেবাজে কথা বলা কেবল রাঙাদের মতো 'লাফাঙ্গা সারমেয়'দের মুখেই শোভা পায়। কারণ রাঙ্গারা জানে না ইতিহাসের সোনালী পাতায় নুর হোসেনদের নাম সর্বদাই আলোক রশ্মির উজ্জ্বল ছটায় জ্বল- জ্বল করেই জ্বলতে থাকবে। অপর দিকে রাঙ্গার নেতা এরশাদ একজন অবৈধ ক্ষমতা দখলদার খুনি জান্তা হিসেবে ইতিহাসের আস্তাকুড়েই পরে থাকবে। এটাই ইতিহাসের নির্মম বিচার। এর অন্যথা হবার নয়"।

No comments: