Sunday, January 15, 2012

"যাহা ছাপিব সত্য ছাপিব, সত্য বৈ..."

মিডিয়ার লোকজনের কী দবদবা! একেকজন চলমান জ্ঞানের ভান্ডার! এঁরা হাঁটেন পা ফাঁক করে তবে সাবধানে, খানিক কাত হলেই জ্ঞান গড়িয়ে পড়বে যে!
কে সুশীল, কে কুশীল, কে সাহিত্যিক, কে সাহিত্যিক নন- কার লেখা পেশাবের ফেনা সবই এরা ঠিক করে দেন। কে সাদামনের মানুষ নাকি কালোমনের মানুষ সবই তার ইচ্ছা! জমিনের ঈশ্বর আর কী! হও বললেন হয়ে গেল।
তবে নিজেদের স্বার্থে আঘাত এলে এদের নোংরা মোজা ছোঁড়াছুড়ি নিয়ে কী নোংরামী হতে পারে এর খানিক নমুনা আমরা দেখেছি [১]!
এদের কু-কান্ড নিয়ে প্রচুর লেখালেখি হয়েছে চর্বিতচর্বণ আর করি না [২], [৩]। তবে...।



টাকা পেলে এরা কি না করতে পারেন, কিছু নমুনা: ('পেশ কিয়া যায়ে')
সূত্র: প্রথম আলো, ২৪ ডিসেম্বর, ২০০১
প্রথম আলো মাইজভান্ডারীর এই বিজ্ঞাপনটা ছাপিয়েছিল। এই বিজ্ঞাপনে আমাদের দেশের মাথাওয়ালা লোকজনেরা বাণী দিয়েছেন। ফাও হচ্ছে, ড. আশরাফ সিদ্দিকী নামের একজন বুদ্ধিজীবি (!) এখানে লিখেছেন, ..."হুজুর জিয়াউল হক মাইজভান্ডারীর গাড়ি নাকি তেল ছাড়া চলত। তেল ছাড়া গাড়ি ১৯২ মাইল পর্যন্ত চলেছিল..."। তিনি আরও বলছেন, "...এমন কতশত ঘটনা। কয়টা কথা বলব..."।
ব্যস-ব্যস, স্যার আর বলতে হবে না। ভাগ্যিস, গর্দভ বুশ, ব্যাটা টের পায়নি অহেতুক তেলের জন্য ইরাক আক্রমণ করল!
জানি-জানি, অনেকে বলবেন বিজ্ঞাপন ছাড়া পত্রিকা চলবে কেমন করে? বটে রে! সেটা নাহয় ২০০১ সালের কথা, তখন প্রথম আলোর পাঠক ছিল না-হয় কয়েক হাজার এখন তো শুনি চার লাখ ছাড়িয়ে পাঁচ লাখ ছুঁই ছুঁই। এখনও কী এদের খাসলত বদলেছে?
সূত্র: প্রথম আলো
'পারসোনা'-এর ক্লোজ-সার্কিট ক্যামেরা নিয়ে কি কান্ড হয়েছে তা আমরা সবাই জানি তবুও এই ভিডিওটা দেখে নিলে মূল বিষয়টা আঁচ করতে সমস্যা হবে না।

সবই তার ইচ্ছা- সবই টাকার খেলা। টাকা দিলে এরা পারেন না এমন কোনো বিষয় নেই। মুক্তচিন্তা-কঠিনচিন্তা এই সব খুবই ফালতু চিন্তা। এদের একটাই চিন্তা, 'টাকাচিন্তা'। আজকের প্রথম আলোয় বইয়ের বিজ্ঞাপন ছাপাবার জন্য এরা দর ঠিক করে দিয়েছেন। প্রতি কলাম ইঞ্চি ২৫০০ হাজার থেকে ১৬০০ টাকা। ভাবা যায়! অথচ এরা ইচ্ছা করলে অন্তত বইয়ের জন্য বড় রকমের একটা ছাড় দিতে পারত। দেবে না, ওই যে বললাম, স্রেফ টাকা বানাবার ধান্ধা। জ্ঞানের বুলি কপচাবে আর আর আমাদের মাথায় কাঁঠাল ভেঙ্গে খাবে।

দৈনিক 'কালের কন্ঠ' সংসদ সদস্য কামাল মজুমদারকে নিয়ে দুদিন কঠিন প্রতিবেদন প্রকাশ করল। পরের দিন তাদের প্রতিবেদনের সুর অনেকখানি নরোম হয়ে এলো। কারণ এদিন যে শেষের পাতায় প্রায় পুরো পৃষ্ঠা জুড়ে কামাল মজুমদারের পক্ষে ঢাউস এক বিজ্ঞাপন ছাপা হয়েছিল। এই বিজ্ঞাপনের কল্যাণে আমরা জানতে পারছি তিনি একজন 'ভালুমানুষ'! এতোটাই 'ভালু' যে আর খানিকটা 'ভালু' হলেই তিনি আকাশলোকে ফেরেশতা হিসাবে দায়িত্ব চালিয়ে যেতে পারতেন।
সূত্র: কালের কন্ঠ, ৭ জানুয়ারি, ২০১২
এই বিজ্ঞাপন থেকে আমরা এও জানতে পারছি এর পেছনে নাকি প্রতিপক্ষ এক রাজনৈতিক দলের হাত আছে।
বেশ-বেশ কিন্তু এই চলমান-চিত্রের পেছনেও প্রতিপক্ষ দলের হাত আছে কিনা এটা আমরা জানতে পারছি না! জানতে পারলে ভাল হতো। এই এক নতুন ঢং হয়েছে, সরকারী লোকজনের বিরুদ্ধে গেলেই তাকে 'জামাত' এই লেবেনচুষের মোড়কে বাজারজাত করে ফেলা।

এদের লোভের লকলকে জিহ্বা দেখে এখন আর অবাক হই না। তবে বিনীত একটা প্রশ্ন ছিল দুই ''-এর প্রতি- মতি ভাইয়া, মিলন ভাইয়া। ভাইয়ারা, আপনাদের পত্রিকায় এটা কি ছাপাবেন? টাকা পাবেন, ক্যাশ। বিজ্ঞাপন যদি হয় এমন যে গোলাম আযম মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের পক্ষে ভোঁতা বল্লম নিয়ে কঠিন যুদ্ধ করেছিলেন। ওসময় তিনি একবার বল্লম চালালেই অন্তত হাজারখানেক পাকআর্মি এফোঁড়-ওফোঁড় হয়ে যেত। ছাপাবেন না, ভাইয়া?
আমার ধারণা, ভাল টাকা পেলে আপনারা এই বিজ্ঞাপনও ছাপাবেন...।

সহায়ক সূত্র:
১. নোংরা মোজা...: http://www.ali-mahmed.com/2012/01/blog-post_14.html 
২. প্রথম আলো: http://tinyurl.com/3yadh4k
৩. কালের কন্ঠ: http://tinyurl.com/38qlfcf

No comments: