Saturday, July 20, 2019

আমাদের বাবুটা!

লেখক: Chand Sultana Chy

"আমাদের ফুটফুটে, দূরন্ত, নিস্পাপ বাচ্চা মো: ইরতিজা শাহাদ (প্রত্যয়)! আগামী ২৩ জুলাই যার ৭ বছর পূর্ণ হত। গত ০৫/০৭/২০১৯ ইং তারিখে স্কয়ার হাসপাতালে PICU (Paediatric Intensive Care unit)-এ ডেংগু জ্বরের চিকিৎসাধীন অবস্থায় PICU-এর consultant Dr. Ahmed Syed-এর চরম অবহেলা, জরুরি সময়ে অনুপস্থিতি এবং Unskilled Duty Doctor-এর ডেঙ্গু জ্বরের একমাত্র চিকিৎসা Fluid Management-এর চরম অদক্ষতা ও ভুলের কারণে আমাদের ছেড়ে জান্নাতের বাগানের ফুল হয়ে চলে গেছে।আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে আমাদের সবচেয়ে প্রিয় আমাদের বাবাসোনাকে হারানোর বেদনা, আমার মেয়েকে তার একমাত্র ছোট ভাইকে হারানোর ব্যথা সহ্য করার ক্ষমতা দান করুন!

যে কোন বাবা-মার কাছে তার সন্তান সবচেয়ে মূল্যবান সম্পদ। আমাদের কাছেও তা-ই । আজকে আমার ছেলের চলে যাওয়া নিয়ে লিখছি কারণ আমি চাই না আর কোন বাবা-মা তাদের বাচ্চাকে শুধুমাত্র ডাক্তারের অবহেলার কারণে হারিয়ে ফেলুক।

স্কয়ার হাসপাতাল আমাদের দেশের তথাকথিত নামী হাসপাতাল! তাদের Paediatric Care Unit-এর যে চরম অদক্ষতা তা নিজের বাচ্চা হারানোর মাধ্যমে বুঝতে পারলাম। ০৪/০৭/২০১৯ ইং সকালে আমার বাবুটা কথা বলতে-বলতে  হেঁটে যখন গাড়িতে উঠল তখন তার BP low এবং Pulse Slow ছিল।
আমরা তাকে আনোয়ার খান মডার্ন হসপিটালে ভর্তি করালাম। সেখানে Fluid inject করার পর আধা ঘন্টার মধ্যে বাচ্চার BP স্বাভাবিক হলো- ১১০/৯০ এবং পালসও স্বাভাবিক হলো। এরিমধ্যে ওর ২ বার urination-ও হয়। তখন আমার বাচ্চা আমাকে বলে, 'mom আমি তো better feel করছি, আমি কি এখন বাসায় যাব'?

Female duty doctors-রা আমার বাচ্চাকে আদর করছিল! এমন সময় আমাদেরকে ওখানকার পরামর্শ দিলেন বাবুটাকে অন্তত ১ দিন close monitoring-এ রাখলে ভালো হয় কারণ BP monitoring করে fluid দিতে হবে কিন্তু Anwar Khan Modern -এ PICU না থাকাতে সেটা ওখানে সম্ভব না । উনি আমাদেরকে বলেছিলেন বিপি আবার কমে গেলে PICU লাগতে পারে। অবশ্য সেটা যে তখনই লাগবে সেটা বলেননি । যেহেতু ওখানে PICU নেই For better monitoring we shifted to Square Hospital as per his Suggestion. তখন বাচ্চার BP, Pulse, Urine সবই স্বাভাবিক ছিল।

Square Hospital-এ গেলে ওরা জরুরি বিভাগ থেকে সরাসরি PICU-তে দিয়ে দিল। দুপুরে বাচ্চা ঘুমাচ্ছিল আর PICU এর Consultant আমাদেরকে brief করলেন বাচ্চা ৯০ ভাগ ঠিক আছে আর যে ১০ ভাগ sick সেটুকু ৪৮ ঘন্টার মধ্যে সুস্থ হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ! এরপর তিনি বাচ্চার treatment plan দিয়ে চলে গেলেন।
আমি বাচ্চাকে দেখে আসলাম ঘুমোচ্ছে। বিকাল ৫ টায় বাচ্চাকে স্যুপ খাওয়ালাম, গল্প করলাম, অভয় দিলাম। ও নার্সের সাথে ঝগড়া করছিল এজন্য সে বড় বেবী তাই ডায়াপার পড়বে না বলে। সবকিছু স্বাভাবিক ছিল। সন্ধ্যা ৭ টায়ও ঘুমাচ্ছিল। রাত ৮ টায় ওর বাবাকে বলল, 'mom কই? আমার ক্ষিধে লেগেছে, আমি খাব'।

রাত ৯ টায় PICU-তে সবার Duty Shift হল। নতুন ডিউটি ডাক্তার , নতুন নার্স। আমি PICU তে ঢুকে দেখলাম বাচ্চা Nurse-এর সঙ্গে আবারও ঝগড়া করছে আবারও ডায়াপার পরিয়েছে বলে! তারপর যখন স্যুপ খাওয়াতে চাইলাম ও বলল, 'এগুলো রোগিরা খায় আমি খাব না '! এরপর বলল, 'এরা সবাই পঁচা আমি এখানে থাকব না, আমাকে বাসায় নিয়ে যাও, তুমি take care কর, আমি ভালো হয়ে যাব'!

তখন আমি লক্ষ করলাম বাবুটা restless হয়ে যাচ্ছে, স্যালাইন ছুটে গেছে অথচ আশেপাশে কোন ডাক্তার, নার্স নেই! বাচ্চাটার sweating হচ্ছে আমি নিজেই মুছে দিচ্ছিলাম! ডিউটি ডাক্তারকে চিৎকার করে ডাকলাম তখন নার্স এসে স্যালাইন ঠিক করে দিল। ডিউটি ডাক্তার এসে ওকে দেখে কোন কিছু না-করেই কানে ফোন লাগিয়ে চলে গেল। আর নার্স আমার বাচ্চাকে শান্ত করার পরিবর্তে বলল, 'তোমাকে কিন্তু injection দিয়ে দিব'! এই হচ্ছে একটা বাচ্চার সঙ্গে নার্সের আচরণ!!
আমি বাবুটাকে এটা-সেটা বলে শান্ত করলাম। ও বলল, 'Mom আমাকে আয়-আয় চাঁদ মামা গেয়ে ঘুম পাড়িয়ে দাও'! আহারে-আহারে, জীবনের শেষ ঘুম পাড়ালাম আমি আমার বাবুটাকে! আর তখন ডিইটি ডাক্তার আমাকে এসে বলল, 'আপনি এখন যান, আমরা ওকে ওষুধ দেব'। এরপর তারা আমাকে আর আমার স্বামীকে আর ঢুকতে দিল না!

রাত ১১:৪০। Consultant Dr. Ahmed Syed দৌড়াতে দৌড়াতে আসলেন। এসে ১৫ মিনিট পরে আমাদের বললেন, 'আপনাদের বাচ্চার ফিফটি-ফিফটি অবস্থা, আপনারা অন্য কোথাও নিয়ে যেতে চাইলে নিতে পারেন''!
অথচ যে ডাক্তার বিকেলেও বললেন চিন্তার কোন কারণ নেই রিপোর্ট দেখে বলেছিলেন বাচ্চার lung একদম clear সেই ডাক্তার রাতে এসে বললেন বাচ্চার lung এর ৯৫% পানিতে ভর্তি! যে বাচ্চাটা আমার সাথে রাত ৯:৩০ পর্যন্ত কথা বললো, খেতে চাইল সেই বাচ্চাকে তারা life Support এ নিয়ে গেল। তখনও আমার বাবুটা mom-mom বলে চিৎকার করছিল! এরপর Consultant Dr. Ahmed Syed আমার বাবুকে life support এ দিয়ে বাসায় চলে গেলেন। মোবাইল অফ করে দিলেন।
ডিউটি ডাক্তার আমাদেরকে ভেতরে ঢুকতে দিচ্ছিল না! আমার স্বামী নিজে একজন ডাক্তার তাকেও তারা এলাউ করছিল না। অনেক হইচই করে আমার স্বামী ভেতরে ঢুকে দেখল আমাদের বাবুটার Blood Pressure zero but they don’t even bother to inform us.

যখন জিজ্ঞেস করা হল তখন বলল আমরা চেষ্টা করছি BP raise করার। আমার বাবুটার lowest platelets level ছিল ৪০,০০০! সকাল হয়ে গেল Consultant Dr. Ahmed Syed-এর দেখা নেই। অনেক ঝামেলা করে Consultant-কে আনতে হল। উনি এসেই আমাকে আরেকটা বাচ্চা মারা যাবার কাহিনী বলা শুরু করেছিলেন তখন আমি তাকে থামিয়ে দিয়ে বলেছিলাম, আমার বাচ্চার কথা বলুন আমাকে!
ওই ডাক্তার বললেন, আপনার বাচ্চা-কে নিস্তেজ করা যাচ্ছিল না, তাই adult dose দিতে হয়েছে। উনি আমাদেরকে আরও বললেন, বাচ্চার ৬০০ ml urination হয়েছে, যা ছিল ডাহা মিথ্যা কথা। কারণ বাবুটা আগে থেকেই ডায়াপার পরানো ছিল তাহলে urine মাপলো কি দিয়ে?! এরপর Consultant Dr. Ahmed Syed আবারও উধাও! মোবাইলও বন্ধ !!

আমাদেরকে  ভেতরে ঢুকতে দিচ্ছিল না । আমি দুপুর ১ টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত অপেক্ষা করলাম। এরপর আমি জোর করে ঢুকে দেখি বাবুটার মাথার নিচে বালিশ নেই! আহ, আমার যা বোঝার বোঝা হয়ে গেল! আমি জোর করে ঢুকে যাওয়াতে তারা তাদের নাটকের ইতি টানতে বাধ্য হল !

আমার বাবুটার তো condition critical ছিল না। আমরা আমাদের বাবুটাকে better monitoring এর জন্য Square Hospital-এ নিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু তারা আমার বুক খালি করে দিল! আমরা আমাদের বাবুটার সমস্ত রিপোর্ট দেখেছি অন্যান্য বিশেষজ্ঞ Consultant-দেরও দেখিয়েছি। পরিষ্কার বোঝা যাচ্ছে শুধুমাত্র Square Hospital PICU-এর Consultant ডাক্তারের চরম অবহেলা আর Duty Doctor-দের চরম অদক্ষতা ও ভুলের কারণে আমাদের সোনাবাবাকে আমাদের হারাতে হয়েছে!


এটা কিভাবে সম্ভব যে এমন একটা নামি হাসপাতালের PICU/NICU-তে একজন মাত্র Consultant Doctor থাকে আবার তাকে on call-এ নিয়ে আসতে হয়? আর উনি কিভাবে এটা বলেন যে, শুক্রবার আমি আসি না কেবল আপনার বাচ্চার জন্য এসেছি! উনি তো বাচ্চাদের দায়িত্বে থাকেন উনি কিভাবে তার দায়িত্ব অবহেলা করেন?!

আমি বিশ্বাস করি, আল্লাহতায়ালা অন্যায়কারীদের বিচার করবেন। কিন্তু তাই বলে কি তারা তাদের দায়িত্বে অবহেলার মাধ্যমে আরো মা-বাবাকে সন্তানহারা করবে, তারা কি ধরা-ছোঁয়ার বাইরে?"