Search

Thursday, June 30, 2011

সাদাকে কালো বলিব

আগেও এই বিষয় নিয়ে লিখেছিলাম, নাম ভুল লেখে, কেন? কান্ডটা আজও 'সকালের খবর' নামের দৈনিকটা করেছে!
এটা যে এবারই প্রথম হয়েছে এমন না, পত্রিকাওয়ালা ইচ্ছা করে এই কাজটা করে! ব্যাটারা এই সব ফাজলামি আর কত কাল যে করবে? এরা কলাম্বিয়ার গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস, তুরস্কের ওরহান পামুক, ফিলিস্তিনের মাহমুদ দারবিশ, ইন্দোনেশিয়ার প্রমোদিয়া অনন্ত তোয়ের লিখতে পারে; কেবল পারে না আলী মাহমেদ লিখতে- মাহমেদ শব্দটা আহমেদ হয়ে যায়! তখন বেচারাদের কলমের নিব ভেঙ্গে যায়! বেচারা, আহা বেচারা!

এখন আর এই সব নিয়ে লিখতে
ইচ্ছা করে না, স্রেফ সময়ের অপচয় মনে হয়। লিখতাম না কিন্তু 'সকালের খবর' নামের পত্রিকাটি গর্হিত এক অন্যায় করেছে।
সূত্র: সকালের খবর ৩০ জুন, ২০১১(পৃ: ১৪)
'আমাদের ইশকুল' [১] নামের যে তিনটা স্কুলের সঙ্গে আমি জড়িত ওই তিনটা স্কুলের মধ্যে একটা স্কুল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তা মাস দেড়েক হবে। বন্ধ করে দেয়া স্কুলটা চালু ছিল প্রায় বছরখানেক হবে। স্কুলটা বন্ধ না-করে উপায় ছিল না। ওটা ছিল ঠান্ডা মাথার সিদ্ধান্ত। সবচেয়ে বড়ো যে সমস্যা ছিল শিক্ষার্থীর সংখ্যা অনেক কমে গিয়েছিল।
যাই হোক, সব মিলিয়ে এই স্কুলটা বন্ধ করে দেয়াটাই যুক্তিযুক্ত মনে হয়েছিল। ওই স্কুলটাকে চালু রাখার চেষ্টা করলে অন্য ২টা স্কুলের উপর চাপ পড়ত! অনেকগুলো কারণের মধ্যে টাকার টানাটানিও একটা সমস্যাও ছিল।

আজ এই পত্রিকা পড়ে আমি আকাশ থেকে পড়লাম। ওয়াল্লা, আমি যেটা জানি না এরা দেখি সেটা দিব্যি জেনে বসে আছে। স্কুলগুলোর মধ্যে যে স্কুলটা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে আজ সেই স্কুলটার খবর ছেপেছে! কেবল ছেপেই ক্ষান্ত দেয়নি, ছবিতে দেখা যাচ্ছে ওই স্কুলের মাস্টার সাহেবা যত্ন সহকারে পড়াচ্ছেন। ছাত্র-ছাত্রীরা মনোযোগ সহকারে পড়াশোনাও চালিয়ে যাচ্ছে।
কী চমৎকার একটা দৃশ্য! দেখলেই বুকটা ভরে যায়!

কী সর্বনাশ! একজন জনপ্রতিনিধি দেখি এই স্কুল নিয়ে মন্তব্যও করেছেন:
"স্থানীয় ইউপি মেম্বার অহিদ ভূঁইয়া সন্তু বলেন, অন্ধপল্লীর এই ছোট্ট শিশুরা চোখে দেখতে পেয়েও এতদিন জ্ঞানের আলো থেকে বঞ্চিত ছিল। এখন তাদের জীবনচিত্র অনেকটা বদলে গেছে।" (দৈনিক সকালের খবর) [২]
কী যন্ত্রণা! সবাই মিলে কী আমাকেই পাগল বানিয়ে ফেলবে। এতো সত্যের মাঝে আমি নিজেই ক্রমশ মিথ্যা হয়ে যাচ্ছিলাম। ইউপি মেম্বার অহিদ ভূঁইয়া সন্তু, তাঁর সঙ্গে কথা বললে হয়তো খানিকটা আশার আলো পাওয়া যাবে মনে করে ফোনে তাঁর সঙ্গে আমার কথা হয়। তিনি উল্টো আমার কাছে জানতে চান, "কোন স্কুল, কোথাকার স্কুল? কোন পত্রিকা? আমি তো এই নিয়ে কোন কথা বলি নাই..."!

সহায়ক সূত্র:
১. আমাদের ইশকুল: http://tinyurl.com/39egrtn
২. সকালের খবর: http://www.eshokalerkhabor.com/2011/06/30/index.php

5 comments:

রাশেদ said...

দীর্ঘশ্বাস,,,,

Anonymous said...

আপনি কি নিজেকে পামুকদের সম পর্যায়ের মনে করছেন?

আলী মাহমেদ-ali mahmed said...

পামুকের সমপর্যায়ের মনে করলে তো এদের সাথে বৈবাহিক সম্পর্ক স্থাপন করা চলত!
এখানে আমি গুটিকয়েক নাম যোগ করেছিলাম এই কারণে এই সব জটিল-জটিল নাম লিখতে এদের ভুল হয় না এটা বোঝাতে।

লেখাটা পড়ার ক্লেশ স্বীকার করেননি এটা বোঝার জন্য রকেটবিজ্ঞানী হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না।
আহা, আপনার পড়াটা তো আমি পড়ে দিতে পারব না- তকলীফ করে কারও লেখা আপনাকেই পড়তে হবে! @Anonymous

Anonymous said...

বড়ই হাস্যকর একটি কমেন্টস করেছন জনাব @Anonymous
এখানে অলোচনা করা হচ্ছে কারো নাম বিকৃত ভাবে ছাপানো নিয়ে। সেটা প্রিন্ট মিডিয়াই হোক বা অন্য কোথাও হোক। এর দায় বর্তায় ঐ মিডিয়ার লোকজনের উপর। একজন সুইপার কে নিয়েও যদি আমি কোন রিপোর্ট করি আমার কোন অধিকার নাই তার নাম বিকৃত ভাবে উপস্থাপন করার। সে আমার বাড়ীর সুইপার হোক বা বারাক ওবামার বাড়ীর সুইপার হোক তাতে কিছুই যায় আসে না। ধুম করে শিশুসুলভ মন্তব্য এখানে মানায় না|

সাইফুল said...

Anonymous,পামুক নামটার সঙ্গে আরেকটা নাম মুখস্ত করে ফেলেন :ছাতিবা:।ছাতিবার অর্থ জানেন তো?নিজে একজন ছাতিবা হয়ে এর অর্থ জানবেন না এমন আশা করি না।