Search

Loading...

Saturday, March 2, 2013

মদিনা সনদ এবং...

৬২৪ খ্রীষ্টাব্দে প্রণীত মদিনার সনদে ৪৭টি শর্ত সম্বলিত একটি সনদ প্রণয়ন করা হয় যেটা মদিনার সনদ (Charter of Medina) নামে পরিচিত। এই সনদের প্রধান প্রধান শর্তাবলী হচ্ছে:
১. মদিনা সনদে স্বাক্ষরকারী ইহুদি, খ্রিস্টান, পৌত্তলিক ও মুসলমান সম্প্রদায় সমান নাগরিক অধিকার ভোগ করবে এবং তারা একটি সাধারণ জাতি (কমনওয়েলথ) গঠন করবে।
২. হযরত মোহাম্মদ (সা:) নবগঠিত প্রজাতন্ত্রের সভাপতি হবেন এবং পদাধিকারবলে তিনি মদিনার সর্বোচ্চ বিচারালয়ের (Court of Apple) সর্বময় কর্তা হবেন।
৩. পূর্ণ ধর্মীয় স্বাধীনতা বজায় থাকবে; মুসলমান ও অমুসলমান সম্প্রদায় বিনা দ্বিধায় নিজ নিজ ধর্ম পালন করবে; কেউ কারও ধর্মে হস্তক্ষেপ করতে পারবে না।

৪. কেউ কুরাইশদের সঙ্গে কোনো প্রকার সন্ধি করতে পারবে না বা মদিনাবাসিদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে কুরাইশদেরকে সাহায্য করতে পারবে না।
৫. স্বাক্ষরকারী কোনো সম্প্রদায়কে বহিঃশত্রু  আক্রমণ করলে সকল সম্প্রদায়ের লোকজনের সমবেত প্রচেষ্টায় বহিঃশত্রুর আক্রমণকে প্রতিহত করবে।
৬. বহিঃশত্রুর আক্রমণে স্বাক্ষরকারী সম্প্রদায়গুলো স্ব-স্ব 'যুদ্ধ ব্যয়ভার' বহন করবে।
৭. স্বাক্ষরকারী সম্প্রদায়ের কোনো ব্যক্তি অপরাধ করলে তা ব্যক্তিগত অপরাধ হিসেবেই গণ্য করা হবে। এর জন্য অপরাধীর সম্প্রদায়কে দোষী করা চলবে না।
৮. মদিনা শহরকে পবিত্র হিসেবে ঘোষণা করা হল এবং রক্তপাত, হত্যা, বলাৎকার এবং অপরাপর অপরাধমূলক কার্যকলাপ একেবারেই নিষিদ্ধ করা হলো।
৯. অপরাধীকে উপযুক্ত শাস্তি ভোগ করতে হবে এবং সর্বপ্রকার পাপী বা অপরাধীকে ঘৃণার চোখে দেখতে হবে।
১০. ইহুদিদের মিত্ররাও সমান নিরাপত্তা ও স্বাধীনতা ভোগ করবে।
১১. দুর্বল ও অসহায়কে সর্বতোভাবে সাহায্য ও রক্ষা করতে হবে।
১২. হযরতের পূর্ব অনুমতি ব্যতীত মদিনাবাসি কারো বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করতে পারবে না।
১৩. স্বাক্ষরকারী সম্প্রদায়ের মধ্যে কোনো বিরোধ দেখা দিলে হযরত আল্লাহর বিধান অনুযায়ী তার মিমাংসা করবেন।
১৪. সনদের শর্ত ভঙ্গকারীর উপর আল্লাহর অভিসম্পাত বর্ষিত হবে।


"A very important human right is given in Clause 25 where freedom was guaranteed for each community to practice its own religion. The implication of this clause is that each individual was also free to choose his or her religion, in line with the clear teachings of the Quran."

আজ অন্য ধর্মের লোকজনের উপর যে আক্রমণ করা হচ্ছে, তা কেন! এরা কারা? এরা কী মুসলমান না? হয়ে থাকলে, এরা কি নিজের ধর্ম পড়েন না? এরা কী মদিনা সনদ পড়েননি!
এরা কী কোরানও পড়েননি? যেখানে লেখা আছে:
"...তোমাদের ধর্ম তোমাদের, আমার ধর্ম আমার।"
-১০৯ সুরা কাফিরুন: ৬

"তোমাদের প্রতিপালক ইচ্ছা করলে পৃথিবীতে যারা আছে সকলেই বিশ্বাস করত। তাহলে কি তুমি বিশ্বাসী হওয়ার জন্য মানুষের উপর জবরদস্তি করবে?"
-১০ সুরা ইউনুস: ৯৯

"আর তারা আল্লাহকে ছেড়ে যাদের ডাকে তাদেরকে তোমরা গাল দেবে না, কেননা, তারা অজ্ঞানতাবশত আল্লাহকেও গাল দেবে...।"
-৬ সুরা আনআম: ১০৮

"হে কিতাবিগণ! তোমরা তোমাদের ধর্ম সম্বন্ধে বাড়াবাড়ি কোরো না...।"
-৪ সুরা নিসা: ১৭১

"ধর্মে কোনো জবরদস্তি নাই। সৎপথ ভ্রান্তপথ থেকে সুস্পষ্ট হয়েছে।"
-২ সুরা বাকারা: ২৫৬


ফ্যাসাদের জন্য কী বলা হয়নি:
"...আল্লাহ তো ফ্যাসাদ সৃষ্টিকারীদেরকে ভালবাসেন না...।"
-৫ সুরা মায়িদা: ৬৪


তাহলে...?

No comments:

Facebook Share