Friday, May 14, 2010

হরতাল নামের গা ঘিনঘিনে শুঁয়োপোকাটা


খালেদা জিয়া [৭] বরিশালে বিএনপির মহাসমাবেশে বলেছেন, ঢাকার মহাসমাবেশ থেকে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু হবে।

বেশ, আন্দোলন করুন সমস্যা নাই। প্রয়োজনের আইনের আশ্রয় নিন, অনশন করুন, কয়েক দিন না খেয়ে থাকুন এতে আমার আপত্তি নাই কিন্তু অন্য কোন পোকা আপনার মাথায় খেলা না করলেই মঙ্গল!

আপনার দলের কিছু লোকজন আভাষ-ইঙ্গিত দেয়ার চেষ্টা করছেন, প্রয়োজনে হরতালের ডাক দেয়া হবে। 
আমার ধারণা, এরা এই সব বলে তবলায় ঠুকঠাক শব্দ করছেন, সময় হলেই গলা ছেড়ে গান ধরবেন এতে কোন সন্দেহ নাই। জনগণ নামের তবলায় চাঁটি মেরে বোঝার চেষ্টা করছেন। 

আমি নিশ্চিত, আমাদের মহান মিডিয়া এই বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এরা আগ বাড়িয়ে লিখবে, বিএনপি হরতাল দেয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করছে। এটা হচ্ছে গাছ লাগাবার জন্য মাটি তৈরী করা! ইতিপূর্বেও আমরা এমনটা দখেছি। 

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ এবং খন্দকার দেলোয়ার হোসেন [৬] বিভিন্ন সময় ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ঠারে ঠোরে হরতাল নিয়ে বলার চেষ্টা করছেন। এখানে আমার খানিকটা বলার ছিল, হরতাল নামের গণতন্ত্রের লেবেনচুষটা এখন আমাদেরকে খাওয়াবার চেষ্টা না করলেই ভাল করবেন। 

আপনার একটা মুখের কথায়, চোখের নিমিষে এই দেশটাকে বিশ্বের সবচেয়ে বড়ো কারাগার বানিয়ে [১] ফেলবেন, এটা এখন বিস্মৃত হলেই ভাল করবেন।  আপনি ভুলে গেছেন, আমরা ভুলিনি, আওয়ামী লীগ লাগাতার হরতাল (মানের পর মাস, বছরের পর বছর) দেয়ার পরও আপনারা এক সেকেন্ড আগেও ক্ষমতা ছাড়েননি! তখন লাভ কী হয়েছিল, ঘন্টা? 
আমি কয়েদী [৩] হতে চাই না। আমাকে গণতন্ত্রের শেকলে [৪] বাঁধার চেষ্টা করবেন না।   

অন্তত আমার, এই দেশের একজন স্বাধীন নাগরিক হিসাবে, আমার পরাধীনতার শেকলটা, আপনার হাতে তুলে দেয়ার কোন গোপন ইচ্ছা আমার নাই। যার ইচ্ছা সে আপনাকে তুলে দিক না, আমি দেব না। ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল যদি মনে করেন কেবল শিক্ষা বিভাগকে হরতালের আওতার বাইরে রাখতে, বেশ তো। তাঁর সন্তান সিলেট থেকে পরীক্ষা দিতে ঢাকা গেলে ঘোড়ায় বা পালকিতে চড়ে যাক না, আমার আপত্তি কী!
ড. মুহাম্মদ জাফর ইকবাল [৫] একজন শিক্ষক বলেই সম্ভবত কেবল শিক্ষা বিভাগ নিয়ে কাতর!

শফিক রেহমান [২] কোন আইনের কিতাব দেখে বলেছেন আমি জানি না, "হরতাল তো আইন করে বন্ধ করা যাবে না"। তিনি থাকুন তাঁর আইনের কিতাব নিয়ে। কিন্তু আমি আমার অল্প জ্ঞান দিয়ে বুঝি, আমার স্বাধীনতা খর্ব হয়, এটা মেনে নিয়ে কোন আইন থাকতে পারে না। থাকলে, এটা অবশ্যই কু-আইন! এমন আইন আমি মানি না।

সহায়ক লিংক:
১. এ গ্রহের সবচেয়ে বড়ো কারাগার: http://www.ali-mahmed.com/2009/09/blog-post_26.html
২. শফিক রেহমান: http://www.ali-mahmed.com/2009/05/blog-post_20.html
৩. কয়েদী: http://www.ali-mahmed.com/2009/02/blog-post_18.html 
৪. গণতন্ত্রের শেকল: http://www.ali-mahmed.com/2009/09/blog-post_22.html 
৫. জাফর ইকবাল: http://www.ali-mahmed.com/2007/06/blog-post_3914.html
৬. খাদক: http://www.ali-mahmed.com/2009/05/blog-post_12.html
৭. খালেদা জিয়া: http://www.ali-mahmed.com/2009/04/blog-post_24.html

No comments: