Friday, June 29, 2007

নির্বোধ, তফাত যাও।

ক্রশবিদ্ধ যীশুর অদভুত সুন্দর একটা মিনিয়েচার পেয়েছিলাম। আমার স্টাডিতে এটা দেখে একজন চিড়বিড় করে তার রোষ উগরে দিলেন। মুসলমান ধর্মের ভারী ক্ষতি নাকি আমার দ্বারা সম্পন্ন হয়েছে। কবুতরের পায়ে করে ইসলাম ধর্ম উড়াল দিল বলে।

আমি রাগ চেপে নির্বোধ মানুষটাকে বললাম, এটা রাখাতে কি সমস্যা হয়েছে!
তিনি বললেন, বিধর্মীর…।
আমি বললাম, বিধর্মীর কি তিনি?
তিনি বললেন, নবী।
আমি বললাম, বেশ। আপনি কি তাঁকে নবী হিসাবে স্বীকার করেন না?
তিনি বললেন, নাউজুবিল্লা।
আমি তার চোখে চোখে রেখে বললাম, আপনি তাঁকে নবী হিসাবে স্বীকার না করলে আপনি নিজেকে মুসলমান বলে দাবী করতে পারেন না।

এই নির্বোধ মানুষটার সঙ্গে আমার কথা বাড়াতে ইচ্ছা করল না। তিনি ডাক্তার বলেই চিকিৎসারসূত্রে আমার অন্দরমহলে আসতে পেরেছেন, বাণী দিতে পেরেছেন। আফসোস, এমন নির্বোধ ডাক্তার হওয়ার চেয়ে আমি বকলম হয়েছি। বড়ো বাঁচা বেঁচে গেছি!

একজন মুসলমান ঈসা (আঃ)- এর ক্রুশেবিদ্ধ করে হত্যা করা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করা যৌত্তিক কিন্ত নবী হিসাবে তাঁকে অস্বীকার করার কোন অবকাশই নাই।
এখানে প্রাসঙ্গিক একটা কোরানের আয়াতের কথা উল্লেখ করা যেতে পারেঃ
*তারা তাকে হত্যা করেনি বা ক্রুশবিদ্ধও করেনি, কিন্ত তাদের এমন মনে হয়েছিল। তার সম্বন্ধে যাদের সন্দেহ ছিল তাদের এ-সম্পকে অনুমান করা ছাড়া কোন জ্ঞানই ছিল না। এ নিশ্চিত যে তারা তাকে হত্যা করেনি। আল্লাহ তাকে তাঁর কাছে তুলে নিয়েছেন। আর আল্লাহ শক্তিমান, তত্বজ্ঞানী। কিতাবিদের মধ্যে প্রত্যেকে তার মৃত্যুর পূর্বে তাকে (ঈসাকে) বিশ্বাস করবেই, আর কিয়ামতের দিন সে (ঈসা) তাদের বিরুদ্ধে সাক্ষী দেবে।
* (৪ সুরা নিসাঃ ১৫৬-১৫৯)