Thursday, January 6, 2011

প্রকৃতির শোধ

আগে একটা লেখায় লিখেছিলাম, প্রকৃতি কখন ফেলে দেবে তা দেখার অপেক্ষায়...[১]। অস্ট্রেলিয়া যখন সাড়ে ছয় লক্ষ উট গুলি করে মেরে ফেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, আমি একটা ধাক্কার মত খেয়েছিলাম। কোন কারণে উটের সংখ্যা অতিরিক্ত হয়ে গিয়েছিল এই সংখ্যা কমানো হবে এটা বিচিত্র কিছু না কিন্তু এরা অন্য রকম একটা রাস্তা বেছে নিয়েছিল। এবং গোটা আয়োজনটার পেছনে এক ধরনের হিংস্রতা, দম্ভের গন্ধ ছড়াচ্ছিল।

অস্ট্রেলিয়া নামের দেশটির জনসংখ্যা মাত্র সোয়া দুই কোটি অথচ এই দেশটিতে বাংলাদেশের মত ১৩৮টি দেশ অনায়াসে জায়গা করে নিতে পারবে! এদের জায়গার এবং খাবারের অভাব নেই। অভাব নেই প্রোটিনের। এরা একেকটি উটকে দেখছে একটা সংখ্যা কিন্তু আমাদের কাছে এরা চলমান প্রোটিনের ভান্ড। এরা এই উটগুলো এভাবে মারার সিদ্ধান্ত না-নিয়ে যেটা করতে পারত কেবল এটা বলে দিয়ে গায়ে বাতাস লাগিয়ে ঘুরে বেড়ানো, আমাদের পোতাশ্রয় থেকে যার যতটা খুশি উট নিয়ে যাও। আমার ধারণা, কাড়াকাড়ি পড়ে যেত। উপকৃত দেশটা বাংলাদেশ, না কঙ্গো তাতে কি আসে যায়? কিন্তু এই সব দাম্ভিক দেশগুলো তা করবে না। এরা কখনই এটা বুঝতে চায় না দরিদ্র দেশগুলোর মানুষরাও এই প্রকৃতিরই সন্তান।

প্রকৃতির প্রতি আমরা অন্যায় করি ক্ষিধার জ্বালায় আর এরা করে অতিরিক্তি লোভের জন্য। এরা এটাও বুঝতে চায় না থুথু যেখানেই ফেলুক এর ছিটা গায়ে লাগবেই। আমাদেরকে প্রোটিন, খাবার না-দিলে আমরা গাছ খাব, সমস্ত গাছ খেয়ে শেষ করে ফেলব। ফল যা হওয়ার তাই হবে। এমন বন্যা এরা দেখেনি, ইউরোপ এমন তুষারপাত দেখেনি। এত দিন করসো [২] আমাদের প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে রসিকতা করেছে, মানবিক কবিতা লিখেছে। গুণ দাদা ভুলে যান আমাদেরকে ভুলিয়ে দেন কিন্তু প্রকৃতি বিস্মৃত হয় না।
প্রকৃতি ঠিকই এর শোধ নেয়- তার এবং তার সন্তানদের উপর অন্যায়ের কারণে। কাল আমরা বন্যায় ভেসেছি আজ অস্ট্রেলিয়া ভাসছে, আগামীকাল আমেরিকা ভাসবে।

ব্রিসবেনের আবহাওয়াবিদ বলেছেন, "...এতো পানি আমরা জীবনেও দেখিনি"। চারদিকে কেবল পানি আর পানি! লোকজনরা নৌকা নিয়ে ছুটাছুটি করছে। অস্ট্রেলিয়ার অধিকাংশ বিমানবন্দর-রেল-সড়ক যোগাযোগ বন্ধ। ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্টের চমৎকার প্রয়োগের কারণে আমাদের মত গন্ডায় গন্ডায় লোক হয়তো এদের মরবে না কিন্তু প্রকৃতি এদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে। এরপরও এদের চোখ না খুললে একদিন ঠিক টের পাবে চোখটাই নেই।

সহায়ক লিংক:
১. সভ্যতা...: http://www.ali-mahmed.com/2009/10/blog-post_9297.html
২. করসো: http://www.ali-mahmed.com/2009/12/blog-post_7854.html 

6 comments:

© ডিউক জন said...

২০১২! চূড়ান্ত ধ্বংসের আগে তবলার ঠুকঠাক বোধ করি।

Sushovan Biswas said...

আপনার লেখা পড়ি... রোজ ই প্রায় এই বাংলায় সি. পি. এম.সন্ত্রাস চালায় এই নিয়ে আপনি কি কিছুই ভাবেন না? plz কিছু লেখেন।

Faysal said...

"২০১২! চূড়ান্ত ধ্বংসের আগে তবলার ঠুকঠাক বোধ করি।"
- এটাও মিডিয়ার প্রচারণা , সত্যি নয় |

এরপরও আন্তর্জাতিক মিডিয়া বাংলাদেশকে বন্যা আর দুর্যোগের দেশ | চীনারা আমাদের ডাকবে 'মান্জালা দে'(বন্যার দেশের লোক)বলে...

তারপরও কেউ বলবেনা , অস্ট্রেলিয়া বন্যা আর নির্বিচারে প্রাণী হত্যার দেশ |

।আলী মাহমেদ। said...

২০১২! © ডিউক জন

।আলী মাহমেদ। said...

"...সি. পি. এম.সন্ত্রাস চালায়...।"
দুঃখের সঙ্গে বলি, এই বিষয়ে আমার কাছে যথেষ্ঠ তথ্য নাই!

এক কাজ করলে কেমন হয়, এই বিষয়ে তথ্য-উপাত্ত নিয়ে আপনি একটা লেখা লিখুন আপনার নিজের সাইটে। আমি আমার সাইটে ওই লেখাটার লিংক দিয়ে দেব।
বা আপনার নাম দিয়ে আমার সাইটে লেখাটা দিয়ে দেব। আপনি লিখলে দয়া করে জানাবেন। ভাল থাকুন। @Sushovan Biswas

।আলী মাহমেদ। said...

"...চীনারা আমাদের ডাকবে 'মান্জালা দে'..."
ঠিকাছে কিন্তু কে কাকে কি ডাকল এটা জরুরি না! এরা যখন ইঁদুরের মত ছুটাছুটি করতে থাকবে তখন 'মান্জালা দে' বলার আর অবকাশ পাবে না। :) @Faysal