Friday, September 27, 2019

ক্যাসিনো কড়চা।

ক্যাসিনো নিয়ে সবাই হঠাৎ ক্ষেপে গেল। জূয়া বলে হয়তো। জুয়া না-হলে সমস্যা ছিল না। বিষয়টা দেখছি খুবই গুরুগম্ভীর! কিছু হালকা চালের কথা বলা যাক। এক চিড়িয়াখানায় লোকজনেরা এদিক-সেদিক ঘুরে বেড়াচ্ছে। হঠাৎ এক লোককে দেখা গেল 'গুছলেংটি' দিয়ে এক দৌড়ে কিউরেটরের কাছে হাজির। হন্তদন্ত হয়ে বললেন, 'তাড়াতাড়ি আসুন আমার সঙ্গে, ওরাংওটাংরা তাস খেলছে'। কিউরেটর উদাস হয়ে বললেন, 'খেলুক না, বাদাম দিয়ে তাসই তো খেলছে জুয়া তো আর খেলছে না'।
যেমন এটা একটা নির্দোষ ক্যাসিনো:


যাই হোক, ক্যাসিনো নিয়ে ধড়পাকড় শুরু হলো। শত-শত কোটি টাকা উদ্ধার হতে থাকল। এরিমধ্যে যুবকদের যুবলীগের চেয়ারম্যান অনলবর্ষি বক্তা বক্তব্য দিলেন:


যুবকদের যুবলীগের নেতা ফাঁকে এও জানালেন এই গ্রহের অধিকাংশ সোনা, হীরা বঙ্গোপসাগরের নীচে শুয়ে আছে, চুপচাপ:


হুইপ সাহেব দিলেন আরেক বক্তব্য:


সূর্যের চেয়ে বালির উত্তাপ বেশি হুইপের চেয়ে হু্ইপের পোলার পাওয়ার বেশি। তাই তো বর্ষীয়ান এক নেতাকে চড়াতে গোপন ইচ্ছা প্রকাশ করলেন:


হুইপপুত্র সেটা না-করার তো কোনও কারণ নেই। গুলি করে দেয়নি এটাই তো বাপের কাজ করেছে:


এই দেশের বুদ্ধিজীবী এবং টকশোতে টকটক করে যারা ঘোড়া দাবড়ান এরা ব্যতীত সবাই জানে এমনকি যে শিশুটি দাঁড়িয়ে ইয়ে ত্যাগ করে সেও জানে যে পুলিশ এবং রাজনীতিতে জড়িত বড় ভাই ব্যতীত এই সমস্ত কর্মকান্ড করা সম্ভব না। এরা পরম মমতায় ঢেকে রাখেন:


আর মিডিয়া, হায় মিডিয়া! এই মেয়র সাহেব পজেটিভ কথা বলেছেন অথচ এরা শিরোনামটা এমন করেছে যে মনে হচ্ছে এই মেয়র বুঝি জুয়ার পক্ষে কথা বলছেন। আজকাল সোশ্যাল মিডিয়া ওরফে এফবির কল্যাণে সব একেকটা আস্ত টিভি হয়ে যাচ্ছে, 'চুতিয়া টিভি':


দেশে ক্যাসিনো ভেসে যায় এর পাশাপাশি ভেসে যায় পদ্মা সেতুর স্প্যানও! সম্রাটের আছেন সম্রাটের মতই ...: