Thursday, July 10, 2014

হাহাকার-নিয়তি-অভিশাপ!



ব্রাজিল এবারের বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ। এ খবর পুরনো এই বিশ্বকাপ আয়োজন নিয়ে ওখানকার বিরাট এক অংশের ক্ষোভের শেষ নেই। এই নিয়ে তীব্র ক্ষেভেরও বহিঃপ্রকাশ ঘটেছিল।
বিশ্বকাপবিরোধী বিশেষ করে নৃ-গোষ্ঠীর আদিবাসী লোকজন প্রচণ্ড বিক্ষোভ করেছিলেন
এঁদের সাফ কথা, জনগণের টাকায় বিশ্বকাপের বিপুল আয়োজন করা ব্রাজিলের মতো উন্নয়নশীল দেশের জন্য স্রেফ বিলাসিতাব্রাজিলে এখনও অনেক লোক দারিদ্র্যসীমার নিচে বাস করে, সেখানে বিশ্বকাপের জন্য অত্যাধুনিক স্টেডিয়াম নির্মাণ আসলে শ্বেতহস্তীর শামিল

এই নিয়ে অনেক বোদ্ধা সরু চোখেও তাকিয়েছেন। কারণ এদের কাছে শো-টাই বড়, শো-এর পেছনের কান্না দেখার আগ্রহ নেই। কতশত কষ্ট, কত হাজার ঘর উজাড় হলো কয় লক্ষ মানুষ ক্ষুধায় কাতর হলো এই সমস্ত ছোটখাটো বিষয়ে তাদের কী আসে যায়। আদিবাসী যাদেরকে আমি আদিমানুষ বলি এই গ্রহের বিভিন্ন স্থানে এদের অনেককেই আমরা মেরেকেটে সাফ করে দিয়েছি আর যারা অবশিষ্ট আছেন এঁরা পুরোপুরিই কোনঠাসা। নইলে এরা এখনও তির-ধনুক নিয়ে অত্যাধুনিক মারণাস্ত্রের বিরুদ্ধে বুঝি বুক চিতিয়ে দাঁড়ান। লাভ কী! এঁদেরকে পরাস্ত করার জন্য রাষ্ট্র তার সমস্ত শক্তি ব্যয় করবে। বেকায়দায় পড়লে ইউএন মিশনের মোড়কে আমাদের কাছ থেকে মার্সেনারি ভাড়া করবে।

অন্য এক লেখায় লিখেছিলাম, ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা বিদায় নেওয়াটা জরুরি- খেলা খেলায় ফিরে আসুক। কারণ এই দুইটা দলকে নিয়ে অনেকের অহেতুক চরম মাতামাতি অসুস্থতা [১], [২] । কিন্তু ব্রাজিলের এমন পতন মন থেকে কদাপি চাইনি।

কোথাও কী হাহাকার-ব্লেসিং নিয়েও অন্য রকম খেলা হয়? কী জানি, জানি না। হবে হয়তো, নইলে এমনটা হবে কেন? ব্রাজিল সেমি-ফাইনালে যা করল এটাকে ডিজাস্টার বললে কম বলা হয়। এটা সহ্যাতীত। ব্রাজিল সমর্থক কেউ-কেউ আত্মহত্যার চেষ্টা করলে আমি অন্তত বিস্মিত হব না। এই অবস্থা  ব্রাজিলের ঘোর শক্রও সম্ভবত কল্পনা করেনি। ১১ মিনিটের মাথায় গোলটাকে নাহয় মেনে নেওয়া গেল। কিন্তু ২৯ মিনিটের মধ্যে যেমন করে অন্য গোলগুলো হলো এটাকে কী বলা চলে! এখানে কেবল সাতটা গোলই শেষ কথা না। মনে হচ্ছিল কোথায় যেন একটা বিষম গোল লেগে আছে যার ব্যাখ্যা ব্যাখ্যাতীত। এমনিতে আরও দু-চারটা গোল দেওয়া জার্মানির জন্য অসাধ্য ছিল না। কেবল দুজন খেলোয়াড়ের জন্যই এমনটা হতে পারে এটা অন্তত আমি বিশ্বাস করি না। তাহলে...?

*ছবি ঋণ: রয়টার্স

১. সিক পিপল: http://www.ali-mahmed.com/2014/06/blog-post_3.html 
২. দ্রুত আরোগ্য কামনায়: http://www.ali-mahmed.com/2014/06/blog-post_8936.html