Sunday, February 9, 2014

ঋণ শোধ করার সময়, এখনই


আমি অসাধারণ এক মুক্তিযোদ্ধার কথা লিখেছিলাম, সায়েরা বেগম []তৎকালীন নং সাব-সেক্টরের কমান্ডার, মেজর জেনারেল সায়ীদ আহমেদ (অব.)লিখিত আকারেও তিনি সায়েরা বেগম সম্বন্ধে বলেছিলেন:
...সায়েরা বেগমের বিস্তারিত এবং নির্ভুল তথ্যের উপর ভিক্তি করে মুকুন্দপুরে ১৮ ১৯ নভেম্বর ৭১- পাকিস্তানি বাহিনীর উপর তীব্র আক্রমণ চালিয়ে অনেক পাকিস্তানি সেনাকে হত্যা এবং ২৯ জনকে বন্দী করে মুকুন্দপুর শক্রমুক্ত করিপাকিস্তান বাহিনীর বিরুদ্ধে নিজের জীবন বাজী রেখে সায়েরা বেগম মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অসামান্য অবদান রেখেছেন।...।

বেশ কিছু দিন পূর্বে সায়েরা বেগম এবং তাঁর স্বামী এসেছিলেন ডাক্তার দেখাতে []
আমি এটাও লিখেছিলাম কথাপ্রসঙ্গে আমরা জেনে যাই তিনি অনুমান করছেন তাঁর পেটে টিউমার- টাকার অভাবে তিনি এর কোনো সুরাহা করতে পারছেন নাওদিন কিছু পরীক্ষা-নিরিক্ষা করার জন্য দেওয়া হয়েছিল বিষয়টা নিশ্চিত হতেতাদের অনেক ঝামেলা, ঝামেলা মিটিয়ে অবশেষে টেস্টগুলো করিয়েছিলেন
এই শুক্রবারে ডা. @Gulzar Hossain Ujjal রিপোর্টসব খুঁটিয়ে দেখে নিশ্চিত হয়েছেন সায়েরা বেগমের অনুমান নির্ভুল- বিনাইন টিউমারএবং এটা অপারেশন করে অপসারণ করাটা জরুরি
অপারেশনের বিষয়ে সার্জন আবদুল্লাহ আল মামুন সহায়তা করার নিশ্চয়তা দিয়েছেনMuquit Mohammad এই অপারেশনের খরচের একটা অংশ শেয়ার করার বিষয়ে সহৃদয়তার কথা জানিয়েছেনবাকী টাকারও কোনো-না-কোনো একটা ব্যবস্থা হয়ে যাবেহতেই হবে, এর অন্যথা হওয়ার কোনো উপায় আমার জানা নাই কারণ যে ফেলে আসা দায় শোধ করার অতি ক্ষুদ্র এক চেষ্টা...

No comments: