Friday, February 18, 2011

সেলিব্রেটিদের বাহ্যজ্ঞান লোপ পায়!

ভাষার জন্য ভালোবাসা নামের লেখাটায় আমি লিখেছিলাম [১]:
"ফেব্রুয়ারি মাসটা আমাদের জন্য বড়ো জরুরি কারণ এই মাস এলেই আমরা ভাষার জন্য ঝাপিয়ে পড়ি, চোখের জল ফেলার সুযোগ পাই। বিস্তর কান্নাকাটি করি। আমাদের দেশের বুদ্ধিজীবীরা তো কাঁদতে কাঁদতে অন্তর্বাস ভিজিয়ে ফেলেন! ফেব্রুয়ারি যাওয়ামাত্র যথারীতি আমরা সমস্ত কিছুই বিস্মৃত হই!"
'...মাস্ত কালান্দার', উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রুনা লায়লার এই গান নিয়ে অনেকে অস্থির! কেন? আর আমাদের দেশের বুদ্ধিজীবীদের আপত্তি এটা ভাষার মাস। আহা, মাসটা ফেব্রুয়ারি বলে? মার্চ হলে সমস্যা ছিল না, না? আর এতে অবাক হওয়ার কী আছে! আমি যেমনটা বলে থাকি, লাগাবেন ধুতুরা গাছ এতে কী আপেল ধরবে, নাকি? রুনা লায়লা তো এই গান গাওয়া নিয়ে চমৎকার একটা ব্যাখ্যাও দিয়েছেন, 'এই গানটি নির্বাচন করেছে ক্রিকেট বোর্ড এতে নাকি তাঁর কোন ভূমিকা ছিল না'।

তাই তো! এটা তো লাইভ টাইপের অনুষ্ঠান ছিল না যে বলামাত্রই একজন গেয়ে ফেললেন। এই গানটার, অনুষ্ঠানটার মহড়া হয়েছে দিনের-পর-দিন। কেউ এটা লক্ষ করলেন না! ক্রিকেট বোর্ড এমনটা করায় ক্রিকেট বোর্ডের লোকজনের পা ত্যাগ বা পা ফেলে দেয়ার দাবী উঠবে এমনটা ভাবার কোন অবকাশ নাই কারণ এটা আদিম যুগ না কিন্তু এই আধুনিক যুগে কেন এই দাবী উঠবে না এদেরকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করা। 
রুনা লায়লাকে খুব বেশি কিছু বলা যাচ্ছে না কারণ তাঁকে ক্রিকেট বোর্ড যেমনটা বলেছে তিনি তেমনটাই করেছেন। আহা বেচারা, অবোধ!

সেলিব্রেটি হতে গেলে সম্ভবত মগজের প্রচুর ব্যবহারে মগজ হয় জীর্ণ! ভুল, মগজের জীর্ণ-শীর্ণ হওয়ার কোন উপায় নেই, মগজের ক্ষয় হতে পারে। অতিরিক্ত ব্যবহারে হয়তো মগজশূণ্য হওয়াও বিচিত্র না, মগজশূণ্য হয়ে বাহ্যজ্ঞান লোপ পাওয়ায় যা হওয়ার তাই হয়! আসলে এটা বোঝা সাধারণ আমাদের কম্মো না, সেলিব্রেটিরাই ভাল বলতে পারবেন। সেলিব্রেটি বলে কথা!
এদিকে খানিকটা চিন্তায়ও আছি, খোদা-না-খাস্তা আমাদের সেলিব্রেটিদের কোন বোর্ড-ফোর্ড নগ্ন গাত্রে নৃত্য করতে বললে তাঁরা কী করবেন?

সহায়ক সূত্র:
১. ভাষার জন্য ভালোবাসা: http://www.ali-mahmed.com/2011/02/blog-post_16.html