Friday, March 27, 2009

কুর্নিশ করি, হে স্বপ্নবাজ!

লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তাঁর কিছু বিষয়ে আমার মতের মিল নাই, সে ভিন্ন প্রসঙ্গ। তদুপরি মানুষটা আমার অসম্ভব পছন্দের। আগেও লিখেছিলাম, এই পোড়া দেশে আমার অসম্ভব পছন্দের অল্প যে ক-জন মানুষ, তিনি তাঁদের মধ্যে অন্যতম।

মানুষটা একজন স্বপ্নবাজ! এমন স্বপ্নবাজ মানুষের এ দেশে বড় আকাল! এমন স্বপ্নবাজরাই পারেন নিজে এমন একটা স্বপ্ন দেখতে, আমাদেরকে দেখাতে।

একি চাট্টিখানি কথা, একটা বইয়ের ৮ কোটি সংখ্যা ছাপাবার কল্পনা করা! অন্য কেউ হলে আমার অট্টহাসিতে মনিটরের পর্দা কেঁপে উঠত। কিন্তু এই মানুষটা কেবল কল্পনাই করেননি বাস্তবায়িত করার বাস্তবতাও ভেবেছেন। হয়তো ৮ কোটি অতিশয়োক্তি কিন্তু এমন স্বপ্ন না দেখলে স্বপ্নের কাছাকাছি যাওয়া যাবে কেমন করে? ইতিমধ্যে বইটার ২ লক্ষ কপি বিক্রি হয়ে গেছে। বাজারে এখনও বিপুল চাহিদা! তিনি আরেকটা অসাধারণ কাজ করেছেন ইংরাজিতে অনুবাদ করে। আমার জানামতে, বিদেশিদেরও দুর্নিবার আগ্রহ আছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা নিয়ে জানার।

তিনি 'মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস' বইটা ১ ফর্মায় নিয়ে এসেছেন, দামটা একেবারেই হাতের নাগালে। ১০ টাকা! একটা শিশু-কিশোরও তার টিফিনের পয়সা বাঁচিয়ে অনায়াসে কিনতে পারবে। যে কখনও বই কেনেনি সেও কৌতুহলের বশে চট করে কিনে ফেলবে।
আমার অভিজ্ঞতা বলে লোকজন বই পড়ে না কিন্তু পড়ে। লিফলেট, চটি-ক্ষীণবপু টাইপের জিনিসগুলো আগ্রহের সঙ্গে পড়ে।

'ফিডম' বইয়ে (২০০৬)লিখেছিলাম:
"...তোমরা লেখকরাও কম জ্ঞানপাপি না। তুমি দেখবে মুক্তিযুদ্ধ সংক্রান্ত বইপত্রের অসম্ভব দাম। সাধারণ পাঠক যে পড়বে তার যো নেই।
প্রকাশক হয়তো বলতে পারেন, আমরা তো আর আর্থিক ক্ষতি স্বীকার করতে পারব না। এরা ব্যবসায়ি, এদের দোষ দেই না। কিন্তু কারও কোন চেষ্টা নাই!
একজন অসম্ভব জনপ্রিয় লেখকের (
হুমায়ূন আহমেদ) মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে একটা বই আছে। তাঁর কথামতে, আমাদের জানামতে, এই বই প্রকাশের বহু বছর পূর্ব থেকেই তিনি বিস্তর কান্নাকাটি করে আসছিলেন। এমনকি, মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালের ওটিতে যাওয়ার পূর্বে ট্রলিতে উপুড় হয়েও চিঁ চিঁ করছিলেন, তাঁর ইচ্ছানুযায়ী মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক বইটা না-লিখে মরে যাওয়াটা ঠিক হচ্ছে না। কিছুতেই শেষ শ্বাস ত্যাগ করবেন না।
মোড়ক উম্মোচনের দিনও তিনি খুব করে কাঁদলেন, আবেগাক্রান্ত কথা বললেন। অথচ বইটার দাম ৪০০ টাকা।
তুমিই বলো, এই দেশে ক-জন ৪০০ টাকা দিয়ে একাটা বই কিনতে পারে? অথচ এই দেশেই এই লেখক লেখালেখি করে কোটি কোটি টাকা কামিয়ে নিচ্ছেন। তাঁর কী কোন দায় নেই? ইচ্ছা করলে তিনি কী পারতেন না, অন্তত সাবসিডি দিয়ে বইটার দাম ১৫০/২০০ টাকা রাখতে?
পত্রিকায় আমি পড়েছি, স্কুল-কলেজ পড়ুয়া অনেকে বইটা কিনতে পারেনি। এক মেয়ে পরম মমতায় হাত বুলিয়ে ছলছল চোখে চলে গেছে...।"


বিপুল আগ্রহ থাকার পরও বইটা আমি নিজেই কিনতে পারিনি। ঢাকা আসা-যাওয়াতেই একগাদা টাকা খরচ, তারপর ৪০০ টাকা আলাদা করে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে বৈকি। এমনিতেও ৪০০ টাকার বইটা কেউ কিনলেও তা পড়ার জন্য ধার দিতে চাইবে না। আমিই কী দিতাম?

'ফ্রিডম' বইটা এই প্রজন্মের চোখে মুক্তিযুদ্ধের উপর লেখা। বইটা প্রকাশের পূর্বে প্রকাশকের সঙ্গে আমার মৃদু বাদানুবাদ হয়েছিল। অখ্যাত লেখকদের জন্য এটা খুবই ঝুকিপূর্ণ কাজ! অখ্যাত লেখকদের কাছে প্রকাশক হচ্ছেন দ্বিতীয় ঈশ্বর- ঈশ্বরগোছের কারও সঙ্গে অনুবাদ নিয়ে কথা চলে, বাদানুবাদ চলে না।
তিনি চাচ্ছিলেন, ৪ ফর্মার এই বইটার দাম নিদেনপক্ষে ১০০ টাকা রাখতে। ১০০ টাকার নিচে মুক্তিযুদ্ধের কোন বইয়ের দাম নাকি রাখা হয় না! মুক্তিযুদ্ধের বইয়ের দাম কম হলে গুরুত্বও নাকি কমে যায়। তাছাড়া তাঁর স্পষ্ট বক্তব্য, মুক্তিযুদ্ধের বই চলে কম, এটা তো প্রেমের উপন্যাস না। কঠিন যুক্তি। না-মেনে উপায় কী তবুও অনেক কস্তাকস্তি করে ৪ ফর্মার এই বইটার দাম ৬০ টাকায় রাখতে প্রকাশককে সম্মত করালাম এই শর্তে, তাঁর আর্থিক ক্ষতি হলে এর দায় আমি নেব। ভাগ্যিস, পাঠকের অযাচিত ভালবাসায় এই দায় আমাকে নিতে হয়নি।

একজন বুদ্ধিজীবীর কথা আজও বিস্মৃত হইনি। তাঁকে জিজ্ঞেস করেছিলাম, মুক্তিযুদ্ধসংক্রান্ত বই-পত্রের উচ্চমূল্য কেন, সাধারণ পাঠক কেমন করে পড়বে?
তিনি মুখ লম্বা করে আলাদা গাম্ভির্য এনে বলেছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ বইপত্র তো খেলার বিষয় না, গবেষণার বিষয়।
বেশ যাহোক, তাহলে এটাকে কী আমরা ক্রমশ আসমানি কিতাবের পর্যায়ে নিয়ে যাচ্ছি। কাপড় মুড়িয়ে উঁচুতে তুলে রাখব। পড়ার প্রয়োজন নাই,কালেভদ্রে নামিয়ে ধুলো মুছে চুমু খাব?

মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আমি অসংখ্য পোস্ট দিয়েছি, অবশ্য অনেক লেখা প্রকাশ হওয়ার কারণে অনেক পোস্ট মুছে ফেলা হয়েছিল তদুপরি এখনও পোস্টের সংখ্যা নেহায়েত কম না। তো, ছাপোষা আমি, লিখতে গিয়ে বড়ো অসহায় বোধ করতাম কারণ প্রয়োজনীয় বইগুলোর এমন আগুন-দাম হাতই দেয়া যেত না। তখন ওয়েবে তথ্যের এমন ছড়াছড়ি ছিল না। পত্রিকা অফিসেও চাকুরি করি না যে হাতের নাগালে প্রয়োজনীয় বই চলে আসবে। থাকি এমন একটা জায়গায় যেখানে একটা পাবলিক লাইব্রেরি পর্যন্ত নাই। বাধ্য হয়ে মুক্তিযুদ্ধ সংক্রান্ত বইপত্রের হাজার-হাজার পৃষ্ঠা ফটোকপি করেছি, ১৫ হাজার পৃষ্ঠা! এটাকে কী চৌর্যবৃত্তি বলা চলে, তাহলে আমি একটা আস্ত চোর!

যাগ গে, মুক্তিযুদ্ধসংক্রান্ত বইয়ের দাম নিয়ে আমার যে তীব্র ক্ষোভ ছিল, জাফর ইকবালের কল্যাণে তা অনেকখানি প্রশমিত হল।

মুহাম্মদ হাবিবুর রহমানের একটা চমত্কার কবিতা আছে:
"পৃথিবীর সব মানুষ স্বাধীন না।
সব স্বাধীন মানুষ আবার সমান স্বাধীন না।"
তাঁর কবিতার সঙ্গে সুর মিলিয়ে বলি,
"পৃথিবীর সব মানুষ স্বপ্নবাজ না।
সব স্বপ্নবাজ আবার জাফর ইকবালের সমান স্বপ্নবাজ না।"
এই প্রজন্ম চট করে কাউকে কুর্নিশ করে না। কিন্তু এমন স্বপ্নবাজকে কুর্নিশ না করে উপায় কী! কুর্নিশ করি হে স্বপ্নবাজ।

*ছবিসূত্র: অজ্ঞাত (গুগল থেকে নেয়া)।
**'মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস' ডাউনলোড করা যাবে এখান থেকে: http://www.liberationwarbd.org/