Friday, June 29, 2007

অন লাইন প্রশ্ন: ১

একটি বাংলা ওয়েব-সাইটে দীর্ঘদিন লেখালেখির সুবাদে একটা অন-লাইন সাক্ষাৎকার নেয়া হয়েছিল আমার মতো অগাবগা মানুষের। সাক্ষাৎকারটির আয়োজন করেছিলেন, কৌশিক আহমেদ। মানুষটার কাছে আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করি এবং যারা প্রশ্ন করে আমার আলো-অন্ধকার বের করে নিয়ে এসেছিলেন, তাঁদের প্রতিও আমার গভীর কৃতজ্ঞতা।
অন লাইনে আমাকে আমাকে কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়েছে। এই প্রশ্নের উত্তরগুলো আমি চেষ্টা করতাম সততার সঙ্গে দেয়ার জন্য এবং এটা করতে গিয়ে অবলীলায় উঠে আসত আমার অন্ধকার দিক, নির্বোধ আচরণ।

এক জনের প্রশ্ন ছিল নিম্নরূপ:
প্রশ্ন ১. আপনি জানেন না এমন কোন বিষয়, অথচ জানার প্রচন্ড আগ্রহ আছে?
উত্তর: ডার্কনেস! আমি যখন এই মহাবিশ্বে নিয়ে ভাবি তখন আমার ব্রেনে শর্ট সার্কিট হয়ে যায়। যেন মনে হয়, আমি, অসীম একটা ক্যানভাসে একটা ন্যানো ডট! আর এখন তো আমরা জানতে পারছি, এই মহাবিশ্বের পাশাপাশি আরও মহাবিশ্ব থাকার সম্ভাবনা। পৃথিবী সৃষ্টি বিগ ব্যাং এর মাধ্যমে, ফাইন! বিগ ব্যাং এর থিওরি অনুযায়ী, ১২ থেকে ১৪ বিলিয়ন বছর আগে এক মহাবিস্ফোরনের মাধ্যমে মহাবিশ্বের সৃষ্টি। এর পর থেকেই মহাবিশ্ব ক্রমশ সম্প্রসারিত হচ্ছে। যে রহস্যময় শক্তি এই সম্প্রসারণ করছে, বিজ্ঞানীরা এর নাম দিয়েছেন ডার্ক এনার্জি! বিজ্ঞানীরা এই ডার্ক এনার্জির রহস্য এখন পর্যন্ত জানতে পেরেছেন মাত্র ৪ ভাগ!
জীবন হচ্ছে একটা লম্বা দৌড়, এই দৌড়ও এক সময় শেষ হয়। তারপর! তারপর!!
এই যে তারপর? এই সম্বন্ধে আমরা কতটুকুই আর জানি। আমার জানতে বড়ো ইচ্ছা করে। তখনই ব্রেনে শর্ট সার্কিট হয়ে যায়, নিজেকে পাগল পাগল লাগে। ইচ্ছা করে দিগম্বর হয়ে বেরিয়ে পড়ি।

প্রশ্ন ২: আপনি জীবনে যা করতে চেয়েছেন কিন্ত হয়নি?

উত্তর: লেখক হতে চেয়েছিলাম। হতে পারিনি।

প্রশ্ন ৩: আপনার প্রেমিকার নাম?
উত্তর: (আংশিক পরিবর্তিত)। আমার একজন প্রেমিকা থাকলে, আমার প্রেমিকারও একজন প্রেমিক থাকা উচিৎ। এবং প্রেমিক হিসাবে সে যদি আমার নামই না জানে, তাইলে আমার প্রেমিকা বলতে কেউ ছিল এ দাবী করাটা কি সমীচীন হবে আমার!

প্রশ্ন ৪: আপনার জীবনে পাওয়া গ্রেট এসিসট্যান্স?

উত্তর: কলাগাছ না হয়ে মানুষ হওয়া এবং চলনসই একটা মস্তিষ্ক পাওয়া।

প্রশ্ন ৫: আপনি কোন ঘটনাটাকে পৃথিবী থেকে মুছে দিতে চাইবেন?

উত্তর: উত্তরটা কনফ্লিক্ট করবে। কিন্ত অপশন থাকলে, বাবা মার আনন্দের ফসল নিরানন্দ অসফল, আমি। আমার জন্মটাকে আটকে দিতাম।

প্রশ্ন ৬: ডক্টর ফস্টাস নিশ্চয়ই পড়েছেন? তার মতো সুযোগ এলে আপনি কি জীবনকে বিক্রি করবেন?
উত্তর: না, ডক্টর ফস্টাস পড়িনি। কিন্ত, এখন আমি আমার এই তুচ্ছ জীবনটাকে কোন অবস্থাতেই বিক্রি করব না। কারণ আমার শেকড় ছড়িয়ে গেছে বহু দূর। আমি এখন নারকেল গাছ, শেকড় কোথায় জানি না!
*অন-লাইন সাক্ষাৎকার: ২